ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০

সিটি কলেজ শিক্ষার্থীদের হামলায় ঢাকা কলেজের পাঁচ ছাত্র আহত

:: সিটি রিপোর্ট || প্রকাশ: ২০২০-০২-২৭ ১৭:৫৭:৩১

রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে সিটি কলেজ শিক্ষার্থীদের ছুরিকাঘাতে ঢাকা কলেজের পাঁচ ছাত্র আহত হয়েছে। আহত শিক্ষার্থীদের মধ্যে চার জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে এবং এক জনকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ২ শিক্ষার্থীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে সিটি কলেজের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা কলেজের ছাত্রদের ওপর সিটি কলেজের ছাত্ররা এ হামলা চালায়।

এসময় ছুরিকাঘাতে আহত শিক্ষার্থীরা হলেন- ঢাকা কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছোয়াদ, রাহাত, তানভীর, সাফওয়ান, এবং নেহাল। এর মধ্যে সোয়াত এবং রাহাত পেটে, তানভীর হাতে, সাফওয়ান পিঠে এবং নেহালের পায়ে গুরুতর জখমের শিকার হয়েছে।

আহত শিক্ষার্থী জানান, কলেজ ছুটির পর আমরা বাসায় ফিরে যাচ্ছিলাম৷ বাসে উঠার জন্য সিটি কলেজের মোড়ে দাঁড়িয়েছি তখন সিটি কলেজের কিছু শিক্ষার্থী দলবেঁধে আমাদেরকে ডেকে খারাপ ভাষায় কথা বলে ও বাজে মন্তব্য করে। আমরা প্রতিবাদ করলে ওরা তেড়ে এসে মারধর শুরু করে৷ এসময় ওদের হাতে লাঠি ও ধারালো ছুরি ছিলো। পরে আমাদের বন্ধুরা আমাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে আসে৷

বিকেলে আহত ছাত্রদের দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে আসেন ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক নেহাল আহমেদ। পরে তিনি বলেন, আমি একটি মিটিংয়ে ছিলাম, খবর শুনে আমি ঢাকা মেডিকেলে গিয়েছি। সেখানে দেখলাম আমার পাঁচ শিক্ষার্থী আহত। এরমধ্যে একজন চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছে, দু’জনের অবস্থা গুরুতর, একজন কে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল নেওয়া হয়েছে, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে শুনলাম, কলেজ ছুটি হওয়ার পর ছাত্ররা বাসায় ফিরছিলো তখন সাইন্সল্যাব এলাকায় সিটি কলেজের শিক্ষার্থীরা ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের ছুরিকাঘাতের ফলেই এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

ঢাকা সিটি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আনোয়ার হোসাইন বলেন ঘটনার সময়ে আমি কলেজের বাইরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি মিটিংয়ে ছিলাম। পথিমধ্যে ঘটনা জানতে পারি। যদি কোন শিক্ষার্থী এই ঘটনার সাথে জড়িত থাকে তবে সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, আহতদের ৫ জনকে তাদের সহপাঠীরা উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসে। এদের মধ্যে নেহালের অবস্থা গুরুতর হলে তাকে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার পায়ে, সোয়াতের এবং রাহাতের পেটে ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।