ঢাকা, সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

ম্যান সিটিকে হারিয়ে এফএ কাপের ফাইনালে আর্সেনাল

:: সিটি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০৭-১৯ ০৬:১২:৫৩

ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে এফএ কাপের প্রথম সেমি ফাইনালে মুখোমুখি হয় ম্যানচেস্টার সিটি এবং আর্সেনাল। বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে গানাররা।

এফএ কাপের সেমিফাইনালে শনিবার (১৮ জুলাই) বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে ম্যানচেস্টার সিটির বিরুদ্ধে মাঠে নামে আর্সেনাল। ইংলিশ এফএ কাপ বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন টুর্নামেন্ট আর ইংলিশ ক্লাবদের কাছে অন্যতম মর্যাদার টুর্নামেন্টও। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা আগেই নির্ধারিত হয়ে যাওয়ায় এই ম্যাচে আর্সেনাল ও ম্যানচেস্টার সিটির ছিল এফএ কাপ জয়ের আরও এক ধাপ কাছে যাওয়ার সুযোগ।

এর আগে কোয়ার্টার ফাইনালে শেফিল্ড ইউনাইটেডকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে সেমি ফাইনালের টিকিট কাটে আর্সেনাল। অন্যদিকে ম্যানচেস্টার সিটি কোয়ার্টারে নিউক্যাসেল ইউনাইটেডকে ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে নিশ্চিত করে সেমি। আর শেষ চারে এসে গতবারের চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির সামনে এফএ কাপের সবচেয়ে সফলতম দল আর্সেনাল।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে সর্বোচ্চ ২০বার এফএ কাপের ফাইনাল খেলেছে আর্সেনাল। আর সিটিকে হারিয়ে ২১তম বারের মতো ফাইনালের টিকিট কাটল গানাররা। সব মিলিয়ে মোট ১৩ বার এফএ কাপের শিরোপা জয় করেছে আর্সেনাল। অন্যদিকে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি এই শিরোপা জিতেছে মোট ছয়বার। এবার প্রিমিয়ার লিগ হাতছাড়া হওয়ায় পেপ গার্দিওলার চোখ ছল এফএ কাপের দিকেই। তবে আর্সেনালের কাছে সেমি থেকে বিদায়ে সেই আশার গুড়ে বালি গার্দিওলার।

এফএ কাপে দুই দলের শেষবারের দেখায় জয় পেয়েছিল আর্সেনাল। ২০১৭ সালে সেমিফাইনালেই ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামেই মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। সেবার সার্জিও আগুয়েরোর আর নাচো মনরিয়েলের গোলে নির্ধারিত ৯০ মিনিট ১-১ সমতায় শেষ হলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এরপর ১০১ মিনিটে অ্যালিক্সিস সানচেজের গোলে ২-১ ব্যবধানে জয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে আর্সেনাল। এবার সিটিজেনদের সামনে ছিল সেবারের প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগ। তবে সেই সুযোগ আর কাজে লাগাতে পারেনি গার্দিওলার শিষ্যরা।

পুর ম্যাচ জুড়ে দুর্দান্ত খেলা আর্সেনালের কাছে যেন পাত্তায় পায়নি এফএ কাপের গেল আসরের চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলে ম্যানচেস্টার সিটিকেই এগিয়ে রাখা যায় তবে কার্যকরী ফুটবল খেলে ফলাফলটাই নিজেদের করে নিয়েছে আর্সেনাল। ম্যাচের প্রায় ৭১ শতাংশ বলের দখল ছিল গার্দিওলার দলের আর ম্যাচজুড়ে মোট ১৪টি শটও আর্সেনালের গোল বরাবর নিয়েছিল স্টার্লিং-ডি ব্রুইনরা। আর গোটা ম্যাচে আর্সেনালের থেকে দ্বিগুণ গোলের সুযোগও তৈরি করেছিল ডেভিড সিলভারা। তবে শেষ পর্যন্ত ম্যাচের ফলাফল নিজেদের দিকে আনতে পারেনি সিটিজেনরা।

ম্যাচের ১৯তম মিনিটে নিকোলাস পেপের দুর্দান্ত এক ক্রস পৌঁছে যায় সিটির ডি বক্সে উদ্দেশ্য এমিরিক অবমেয়ং। বল খুঁজে নিলেন অবা আর পাঠিয়ে দিলেন জালে। ম্যাচের ২০ মিনিট গড়ানোর আগেই ১-০ তে এগিয়ে সিটি। এরপর থেকে ম্যাচের শেষ অবধি ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যর্থ চেষ্টা সিটিজেনদের। একের পর এক আক্রমণে আর্সেনালের রক্ষণকে ব্যস্ত রাখে ডি ব্রুইন, ডেভিড সিলভা, রিয়াদ মাহারেজ, রহিম স্টার্লিং আর গ্যাব্রিয়েল জেসুসরা। তবে এদিন গানারদের রক্ষণ ছিল পাহাড়ের মতো দৃঢ়। তো বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের দুর্দান্ত আক্রমণ ভাগও চিড় ধরাতে পারেনি এই রক্ষণে।

ম্যাচের তখন ৭১ মিনিট চলছে, গোল পরিশোধে মরিয়া ম্যান সিটি, একের পর এক আক্রমণ করেই যাচ্ছে। তব গোলের দেখা পাচ্ছিল না, উল্টো কিয়েরন টেনিয়েরের অ্যাসিস্ট থেকে অবমেয়ং ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোল করে বসেন। আর দলকে এগিয়ে নেন ২-০’তে। অনেকটা কফিনের শেষ পেরেক ঠোকার মতোই কাজটা করেছেন অবমেয়ং। খেলার আরও প্রায় ২০ মিনিট বাকি থাকলেও ম্যাচে আর ফেরা হয়নি সিটিজেনদের। তাই তো শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে গানাররা।

বর্তমান এফএ কাপের চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে সর্বোচ্চ ২১তম বারের মতো ফাইনালে উঠল আর্সেনাল। এবার অপেক্ষা দ্বিতীয় সেমিফাইনাল হতে কোন দল আর্সেনালের প্রতিপক্ষ হিসেবে ফাইনালে উঠে আসে। রোববার (২০ জুলাই) বাংলাদেশ সময় রাত ১২ টা ৪৫ মিনিটে এফএ কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং চেলসি।